জটিল রোগে আক্রান্ত ৮ বছরের এক শিশুজটিল রোগে আক্রান্ত ৮ বছরের এক শিশু – দৈনিক গণ আওযাজ
বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:৩১ অপরাহ্ন

জটিল রোগে আক্রান্ত ৮ বছরের এক শিশু

গণ আওয়াজ ডেস্ক/১১৬বার পড়া হয়েছে
আপডেট :বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই, ২০২০

বরিশালের বানারীপাড়ায় জটিল কিডনি ও লিভার রোগে আক্রান্ত ৮ বছরের সেই শিশু আব্দুল্লাহর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। বুধবার (২৯ জুলাই) সকালে তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে কিডনি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

তার বাবা খলিল খান জানান, আব্দুল্লাহর প্রসাব-পায়খানা বন্ধ হয়ে গেছে। চিকিৎসক বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে দিয়েছেন।

এদিকে বিভিন্ন পত্রিকায় ‘শিশু আব্দুল্লাহর দু’চোখে বাঁচার করুন আকুতি, প্রতিজন এক টাকা করে দিলে বেঁচে যেতে পারে তার প্রাণ’ শিরোণামে সংবাদ প্রকাশ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তাকে নিয়ে মানবিক পোষ্ট দেওয়া হলে কয়েকজন সহৃদয়বান ব্যক্তি তার চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাদের দেওয়া ৭ হাজার টাকায় বর্তমানে আব্দুল্লাহর চিকিৎসা চলছে। যা তার উন্নত চিকিৎসার জন্য অপ্রতুল। তাকে বাঁচাতে কয়েক লাখ টাকার প্রয়োজন। সবাই একটু মানবিক দৃষ্টিকোনে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলে এ শিশুটি সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে। প্রাণপ্রিয় ছেলেকে বাঁচাতে তার হতদরিদ্র বাবা-মায়ের মাদার অব হিউম্যানিটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দেশ-বিদেশের সহৃদয়বান বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সহায়তার জন্য করুন আকুতি জানিয়েছেন।

সাহায্য পাঠানোর বিকাশ নম্বর (মো. খলিল খান-০১৭৭৭০২১০০৫)।

প্রসঙ্গত, বানারীপাড়ার উদয়কাঠি ইউনিয়নের লবনসাড়া গ্রামের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র আব্দুল্লাহ কিডনি ও লিভার রোগে আক্রান্ত হয়ে তার হাত-পা ও পেট সহ সারা শরীরে পানি জমে সুচিকিৎসার অভাবে সে ক্রমশ মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে। গুরুতর অসুস্থ শিশু পুত্রকে নিয়ে তার হতদরিদ্র বাবা-মায়ের দু’চোখে কেবলই অমানিশার ঘোর অন্ধকার। উপজেলার লবনসাড়া গ্রামের দিন মজুর খলিল খানের ছেলে ও স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র আব্দুল্লাহ (৮) গত ৭ মাস পূর্বে হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়ে। বরিশালে চিকিৎসকের পরীক্ষা-নিরীক্ষায় তার কিডনি ও লিভারে জটিল সমস্যা ধরা পড়ে। তাকে ঢাকায় নিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে সুচিকিৎসা করালে সুস্থ হয়ে আবার স্বাভাবিক জীবনে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু তার হতদরিদ্র দিনমজুর পিতার পক্ষে সেই ব্যয়ভার বহন করে ছেলের উন্নত চিকিৎসা করানো সম্ভব নয়।

 

 



বাংলাদেশ সময়ঃ ০৫ঃ১৯ পি.এম / ৩০ শে জুলাই,২০২০



 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরো খবর