কেশবপুরে যুবদল হঠাৎ চাঙ্গা পদ পেতে জোর লবিং শুরুকেশবপুরে যুবদল হঠাৎ চাঙ্গা পদ পেতে জোর লবিং শুরু – দৈনিক গণ আওযাজ
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন

কেশবপুরে যুবদল হঠাৎ চাঙ্গা পদ পেতে জোর লবিং শুরু

যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি/১০৯বার পড়া হয়েছে
আপডেট :বুধবার, ২৯ জুলাই, ২০২০

যশোর কেশবপুরের উপজেলা ও পৌর কমিটি গঠন উপলক্ষ্যে দলের মধ্যে পদ প্রত্যাশীরা পদ পেতে মাঠে নেমেছেন। পদ পেতে জোর লবিং শুরু হয়েছে। কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ এর প্রায় ১৪ বছর পর কমিটি গঠন হতে চলেছে। কেশবপুরে ঝিমিয়ে পরা যুবদল চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। দলীয় পদ প্রত্যাশীরা নেতা ও কর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে।

আন্দোলন-সংগ্রামে পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করা হলে দল সুসংগঠিত হবে বলে জানান তৃণমূলের যুবদল নেতারা। কেশবপুর থানা ও পৌর যুবদলের আহবায়ক, সদস্য সচিব ও যুগ্ম আহবায়ক পদে দুই ডজন পদ প্রত্যাশীরা ফরম সংগ্রহ করেছেন। বিনা মূল্যে এ ফরম বিতরন করা হচ্ছে । কেশবপুর থানা যুবদলের আহ্ববায়ক পদে ফরম সংগ্রহ করেছেন সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা জাহাঙ্গীর কবির মিন্টু,কেশবপুর থানা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গফুর,কেশবপুর থানা যুবদলের সহ সভাপতি আলমগীর সিদ্দিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীমউদ্দীন হলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক রুবায়েত শাহানাজ ,যুবদল নেতা প্রভাষক রফিকুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, ইয়াসির মোড়ল,সদস্যসচিব পদে কেশবপুর থানা ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সহ সভাপতি গোলাম মোস্তফা, কেশবপুর থানা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান শিপন,সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খাইরুল বাশার বাবলু, আবুল হাসান, হাবিবুর রহমাম, যুগ্ম আহ্ববায়ক পদে মাছুদুর রহমান মিলন। পৌর আহ্ববায়ক পদে কেশবপুর পৌর ছাত্রদলের সভাপতি মোকাদ্দেসুর রহমান বাবু, সাবেক ছাত্রনেতা আলম,মেহেদী হাসান হিমেল। সদস্য সচিব পদে সাবেক ছাত্রদল নেতা কবীর হোসেন রিপন, ওলিয়ার রহমান উজ্জ্বল, মতিন গাজী, নজরুল ইসলাম,ওলিয়ার রহমান, মেহেদী বিশ্বাস,আশিকুর রহমান প্রমূখ ফরম সংগ্রহ করেছে। জানা গেছে, ২০০৩সালে কেশবপুর উপজেলা যুবদলের শেষ কমিটি কমিটি গঠন হয়। কুতুবউদ্দীন বিশ্বাস কে সভাপতি, আলাউদ্দীন আলা সাধারণ সম্পাদক ও জুলমত হোসেন কে সাংগঠনিক সম্পাদক করে কমিটি গঠন করা হয়। বর্তমানে থানা যুবদলের সভাপতি কুতুবউদ্দীন বিশ্বাস পৌর বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, থানা যুবদলের সাধারণসম্পাদক চেয়ারম্যান আলাউদ্দীন আলা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন । সাংগঠনিক সম্পাদক চেয়ারম্যান জুলমত আলী বিএনপি নেতা। ফলে যুবদলের সাংগঠনিক কার্যক্রম ঝিমিয়ে পরে। শেখ শহীদ কে পৌর যুবদলের সভাপতি ও নুরুজ্জামান চৌধুরী কে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। বর্তমানে দু’জনই বিএনপির স্থানীয় নেতা। কেশবপুর থানা যুবদলের আহ্বায়ক পদের প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবীর মিন্টু বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হলের সাধারণ সম্পাদক পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছি। নিজের এলাকায় ফিরে এসে দলের সকল কার্যক্রমের সাথে আছি। অপরপ্রার্থী আব্দুল গফুর বলেন কেশবপুর থানা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছি। দলের কার্যক্রমে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি।
কেশবপুর থানা যুবদলের সদস্য সচিব পদের প্রার্থী সভাপতি গোলাম মোস্তফা  বলেন রোববার রাতে মনোয়নপত্র সংগ্রহ করেছি। আমি কেশবপুর পৌর ছাত্রদলের সভাপতি , থানা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ও যশোর জেলা ছাত্রদলের সহ সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছি। দলের সকল আন্দোলন ও সংগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছি। দল আমাকে সঠিক মূল্যায়ন করবে বলে মনে করি। পৌর যুবদলের আহ্ববায়ক পদ প্রত্যাশী পৌর ছাত্রদলের সভাপতি মোকাদ্দেসুর রহমান বাবু বলেন দল যে সিদ্ধান্ত নেবে মেনে নিয়ে কাজ করবো। অপর প্রার্থী সাবেক ছাত্রনেতা আলম বলেন আহ্ববায়ক পদেও জন্য আবেদন করেছি। মেহেদী হাসান হিমেল ও পদের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। পৌর সদস্য সচিব পদে ওলিয়ার রহমান উজ্জ্বল বলেন দলের সাথে আছি। দল মূল্যায়ন করবে।অপর প্রার্থী সাবেক ছাত্রদল নেতা মেহেদী বিশ্বাস বলেন দল আমাকে মূল্যায়ন করবে।

 



বাংলাদেশ সময়ঃ ০৭ঃ৫৫ পি.এম. / ২৯ শে জুলাই , ২০২০



 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরো খবর